জাপান থেকে প্রচুর পরিমাণে করোনা ভ্যাক্সিন এসে পৌছাল ঢাকায়

জাপান থেকে প্রচুর পরিমাণে করোনা ভ্যাক্সিন এসে পৌছাল ঢাকায়

আন্তর্জাতিক দিনকাল বাংলাদেশ

যমুনা ওয়েব ডেস্কঃ বাংলাদেশে অনেকেই আছেন যারা করোনার প্রথম ডোজ নেবার পড়ে অধীর আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করে আছেন কবে দ্বিতীয় ডোজ পাবেন সেই আশায় । অবশেষে জাপান থেকে সাহায্য হিসাবে প্রচুর পরিমাণে ভ্যাক্সিন এসে পৌছাল হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে। শনিবার বাংলাদেশ সময় বিকাল  পৌনে তিনটায় এই ভ্যাক্সিনের বিষয়টি বিমানবন্দরে কর্মরত স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক ডা. শাহরিয়ার সাজ্জাদ নিশ্চিত করেন।

আজ বিকাল পৌনে তিনটে নাগাদ অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাক্সিন নিয়ে জাপান থেকে ক্যাথে প্যাসিফিক এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসেছে । বিমান বন্দরে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন । এছাড়া বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপান দূতাবাসের কর্মকর্তারা সেখানে হাজির ছিলেন ।  জাপানের পক্ষ থেকে জানা গেছে, আগামী শুক্রবার আরও প্রায় ৫ লাখসহ মোট ৩০ লাখের বেশি অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাক্সিন বাংলাদেশে পাঠানো হবে । 

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার সাথে সাথে দেশে করোনা পরিস্থিতি আমুল পাল্টে যায় । সরকারীভাবে গোটা দেশে শাটডাউন ঘোষণা করা ছাড়া সরকারের দ্বিতীয় কোন রাস্তা ছিল না । এদিকে বিদেশ থেকে আসা করোনা ভ্যাক্সিনের মজুত শেষ হয়ে যাওয়ায় কয়েক লাখ মানুষ প্রথম ডোজ দেবার পর দ্বিতীয় ডোজের জন্য অপেক্ষা করে ছিলেন । জাপান সরকারের তরফ থেকে উপহার পাওয়া এই ভ্যাক্সিন এবার সেই ঘাটতি অনেকটাই মেটাতে পারবে বলে ধারনা করা হচ্ছে । 

বাংলাদেশের করোনা পরিস্থিতি এখনও যথেষ্ট নাজুক !  স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) ডা. নাসিমা সুলতানার সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা যাচ্ছে, শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় মোট ২০ হাজার ৮২৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে । যার মধ্যে ৬ হাজার ৭৮০ জনের রেজাল্ট পজিটিভ । এই সংখ্যা যথেষ্ট উদ্বেগজনক বলে ধারনা করা হচ্ছে । স্বাস্থ্য দপ্তরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত সরকারীভাবে ৫৪ লাখ ৪৯ হাজার ৮৬৭ জন এবং বেসরকারিভাবে ১৯ লাখ ৬৭ হাজার ৮২৭ জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে । এদের মধ্যে পজিটিভ ফল এসেছে মোট  ১১ লাখ ৫৩ হাজার ৩৪৪ জন। বর্তমানে বাংলাদেশে করোনার সুস্থতার হার ৮৫.৬৯ শতাংশ । 

Leave a Reply

Your email address will not be published.